ঢাবিসাসের সাধারণ সম্পাদকের ওপর হামলা, জাবিসাসের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ইমরান প্রতিবাদী ভূমিকার কারনে পবিত্র ঈদ উল আযহার দিনে ঝিনাইদহে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির দ্বারা নৃশংস হামলার স্বীকার হয়েছেন। এই ঘটনায় তীব্র নিন্দা, ক্ষোভ ও প্রতিবাদ জানিয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (জাবিসাস)।

রবিবার (২ আগস্ট) জাবিসাসের দপ্তর ও প্রকাশনা সম্পাদক রুদ্র আজাদ স্বাক্ষরিত এক যৌথ বিবৃতিতে সাংবাদিক সমতির সভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ ও সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

বিবৃতিতে জাবিসাস নেতৃবৃন্দ বলেন, ঢাবিসাসের সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ইমরান ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার গাড়াপোতা গ্রামে কোরবানির মাংসের মিসকিনদের অংশ বন্টনে স্থানীয় ইউপি সদস্য (মেম্বার) আজিুজর রহমান অনিয়ম করলে প্রতিবাদ করেন। এতে আজিজুর রহমান ও তার অনুসারীরা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ইমরানের ওপর নৃশংস হামলা চালায়। এতে ইমরান ও তার ছোট ভাই ঢাবি শিক্ষার্থী আকরাম হোসন ও তার পিতা আহত হন। বর্মানে ইমরান মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। উক্ত ঘটনাটি দেশব্যাপী সাংবাদিকদের প্রতি ক্ষমতাসীনদের রুষ্টতার বর্রতার প্রতীক বলা যায়।

সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, দেশব্যাপী গণমাধ্যম কর্মীদের প্রতি হামলা ও সহিংসতার ঘটনা নিয়মিত আকার লাভ করেছে। যা দেশের সুশাসন ও গণতন্ত্রের প্রতি বিরাট হুমকি। গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী ও বার্তা সংস্থা ইউএনবিতে র্কমরত ইমরান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চল্লিশ হাজার শিক্ষার্থীর আশা ভরসার আশ্রয়স্থল সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক। একজন সাংবাদিক নেতা হয়েও দুর্নীতিবাজ স্থানীয় প্রশাসন কর্তৃক নিগৃহীত হওয়ার ঘটনা সাংবাদিকতার প্রতি অবমাননা ও দমন পীড়নের চরম বাস্তবতা ফুটে উঠেছে। আমরা এইধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে ইমরানের ওপর হামলার ঘটনার দ্রুত প্রতিবিধান কামনা করছি। ইমরানের প্রতি সহিংসতা সকল ক্যাম্পাস সাংবাদিককে বিচলিত করেছে।

নিউজ গার্ডিয়ান/ এমএ/