জাবিতে ‘বাংলার সমাজ ও সংস্কৃতিতে নারী’ বইয়ের মোড়ক উম্মোচন

জাবি প্রতিনিধি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক নাসিম আখতার হোসাইন ও পারভীন জলীর সম্পাদনায় ‘বাংলার সমাজ ও সংস্কৃতিতে নারী’ বইয়ের মোড়ক উম্মোচন করা হয়েছে।

রবিবার (২৪ মার্চ) বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ও মানবিকী অনুষদের ৩২২ নং কক্ষে এই বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন কলা ও মানবিকী অনুষদের ডীন অধ্যাপক মোজ্জামেল হক। তিনি বলেন,” বাংলার সমাজ ও সংস্কৃতিতে নারী “ বইয়ে সমাজে নারীর অবদানকে যেভাবে চিত্রায়িত করা হয়েছে তা আগে কোন বইয়ে এরকম পাওয়া যায়নি । আমাদের সমাজ ও ইতিহাস রচনায় নারীর ভূমিকা অতুলনীয়। এসময় তিনি নারীর অধিকার রক্ষায় সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

প্রধান আলোচকের বক্তব্যে অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, ‘১৯৪৭সালের দেশভাগ, ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন, ১৯৬৯ সালের গনঅভ্যূত্থান, ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে বর্তমান কালেও নারীরা সমাজ বিনির্মানে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে। কিন্তু পুরুষতান্ত্রিক সমাজে তাদের অধিকার স্বীকৃতি দেয়া হয় না। কিন্তু ‘বাংলার সমাজ ও সংস্কৃতিতে নারী’ বইয়ে লেখক বিভিন্ন অধ্যায়ে দেখিয়েছেন যে বাংলার সমাজ সংস্কৃতি বিনির্মাণে নারীরা পুরুষের সমান অবদান রেখেছে।

আলোচনায় অংশ নিয়ে ডা. মনীষা চক্রবর্তী বলেন, ‘লেখক, সাহিত্যিক, রাজনীতিবিদ সবাই নারীদেরকে অবজ্ঞার চোখে দেখে। বর্তমানেও তার ব্যতিক্রম নয়। পাঠ্যবই থেকে রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনের লেখা বাদ দেওয়া হচ্ছে, লেখকরা তাদের বইয়ে পুরুষকে প্রাধান্য দিচ্ছে, মহান মুক্তিযুদ্ধে নারীর অবদানকে ছোট করে উপস্থাপন করছে। নারীর মুক্তির জন্য নারীকেই এগিয়ে আসতে হবে, তাদের গৌরবময় ইতিহাস তাদেরকেই লিখতে হবে’।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা ববিশ্ববিদ্যালয়ের গনযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক কাবেরী গায়েন, লেখক ও সাংবাদিক ফারুক ওয়াসিম ও অভিনেত্রী বন্যা মীর্জা। অনুষ্ঠানটি অপূর্ব পাল অর্ক এর নির্দেশনায় নির্মিত” আগুনপাখি” চলচিত্র প্রদর্শনীর মাধ্যমে শেষ হয়।

নিউজ গার্ডিয়ান/ ১০:৫৯/ এমএ/