জেনে নেই বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত কার পয়েন্ট কত

দেখতে দেখতে দ্বাদশ আইসিসি বিশ্বকাপের ১৪টা দিন পেরিয়ে গেছে। এর মধ্যে বৃষ্টিবাধায় একাধিক ম্যাচ পরিত্যক্তসহ ঘটে গেছে নানা নাটকীয়তা। বিশ্বকাপে সব দলটি সেরাটা উজাড় করে দিয়ে শেষ পর্যন্ত টিকে থাকতে চায়। কিন্তু চাইলেই তো আর সব সময় সবকিছু সম্ভব হয় না। আর বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তোজা কথিত ‘ভাগ্যদেবী’র কৃপাদৃষ্টি বলেও তো একটা কথা থাকে।

বিশ্বকাপর শুরুর আরও বহু আগে থেকেই প্রতিটি দল নানামাত্রিক ছক কষাকষি শুরু করে দেয়। কার কার বিপক্ষে জেতা সম্ভব, কাদেরকে হারানো বেশি কঠিন- এইসব কারিকুরি করে সবগুলো দলটি একটি পরিকল্পনা নিয়ে মূলমঞ্চে আবির্ভূত হয়। কিন্তু এবার ইংল্যান্ডে বেরসিক বৃষ্টি এরইমধ্যে একাধিক দলের পরিকল্পনা ভেস্তে দিয়েছে। পরিত্যাক্ত ম্যাচে পয়েন্ট ভাগাভাগি করতে হয়েছে অনেককে।

তারপরও গত ১৩ দিনে ১৭টি ম্যাচের যবনিকা হয়েছে। এই ১৭ ম্যাচ শেষে কার পয়েন্ট কত, কে সবচেয়ে এগিয়ে, সবার পেছনে কে, কার উপড়ে কে কিংবা কার সম্ভাবনা কতটুকু- চলুন পাঠক সেই হিসাবের খাতাটা এক পলক উল্টে নিই।

নিউজিল্যান্ড: গেল আসরের রানার্স আপ নিউজিল্যান্ড এবার এখন পর্যন্ত আছে পয়েন্ট টেবিলে সবার উপরে। তিন ম্যাচের প্রতিটিতেই জয় তুলে নিয়ে তাদের পয়েন্ট ৬। ব্ল্যাক ক্যাপসদের নেট রান রেট ২.১৬৩।

অস্ট্রেলিয়া: ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া ৪ ম্যাচে এক হার ও ৩ জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে। ৫ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের নেট রান রেট ০.৫৭০।

ইংল্যান্ড: ইংল্যান্ডকে এবারের বিশ্বকাপে সবচেয়ে হট ফেবারিট ভাবা হচ্ছে। স্বাগতিকরা ৩ ম্যাচে এক হার ও ২ জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে আছে তিন নম্বরে। তাদের নেট রান রেট ১.৩০৭।

ভারত: এশিয়ার দলগুলোর মধ্যে বিশ্বকাপের অন্যতম দাবিদার ভারতের অবস্থান পাঁচে। যদিও এখনও পর্যন্ত তারা খেলেছে মাত্র দুটি ম্যাচ। দুই ম্যাচের দুটিতেই জয় তুলে নিয়ে পূর্ণ ৪ পয়েন্ট আছে ভারতের হাতে। তাদের নেট রান রেট ০.৫৩৯।

শ্রীলঙ্কা: বলা যায় অনেকটা ভাঙাগড়ার মধ্য দিয়ে বিশ্বকাপে দল নিয়ে এসেছেন কোচ হাথুরুসিংহে। তারপরও ভাগ্য তাদের সহায়। পরপর দুটি ম্যাচে আন্ডারডগ হয়েও ম্যাচ পরিত্যাক্ত হওয়ায় বাড়তি ২ পয়েন্ট পেয়েছে লঙ্কানরা। ৪ ম্যাচে এক জয় এক হার ও দুই পরিত্যক্ত ম্যাচের ২ পয়েন্ট মিলিয়ে মোট ৪ পয়েন্ট নিয়ে টুর্নামেন্টে ৫ নম্বরে আছে ১৯৯৬ এর চ্যাম্পিয়নরা। তাদের নেট রান রেট -১.৫১৭।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: তিন ম্যাচে এক জয় এক হার ও এক পরিত্যক্ত মিলিয়ে উইন্ডিজ ৩ পয়েন্ট নিয়ে ৬ নম্বরে অবস্থান করছে। ক্যারিবিয়ানদের নেট রান রেট ২.০৫৪।

বাংলাদেশ: বিশ্বকাপে অভিজ্ঞতার বিচারে অনেক দলের চেয়েই এগিয়ে বাংলাদেশ। তারুণ্যের মিশেলটাও দুর্দান্ত। কিন্তু এক সাকিব আল হাসান ছাড়া মাঠে শতভাগ উজাড় করে দিতে পারছে না কেউই। নেই ভাগ্যের সহায়তাও। ফলে ৪ ম্যাচে ১ জয় ২ পরাজয় ও এক পরিত্যাক্ত ম্যাচ মিলিয়ে টাইগাররা ৩ পয়েন্ট নিয়ে আছে টুর্নামেন্টের ৭ নম্বর অবস্থানে। এখান থেকে শীর্ষ চারে উঠে আসাটা অসম্ভব না হলেও এখন যথেষ্ট কঠিন কাজ বলেই মনে করছে ক্রিকেট বিশ্লেষকরা। লাল-সবুজের জার্সিধারীদের নেট রান রেট -০.৭১৪।

পাকিস্তান: পাকিস্তানকে বলা হয় আনপ্রেডিক্টেবল দল। এবার এখন পর্যন্ত দলটির বড় চমক স্বাগতিক ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দেয়া। ৪ ম্যাচে এক জয় দুই হার ও একটি পরিত্যাক্ত ম্যাচ মিলিয়ে ৩ পয়েন্ট নিয়ে অষ্টম স্থানে তাদের অবস্থান। নেট রান রেট -১.৭৯৬।

দক্ষিণ আফ্রিকা: বিশ্বকাপটা এবার দুঃস্বপ্নের মতো যাচ্ছে প্রোটিয়াদের। টানা তিন ম্যাচে হারের পর চতুর্থ ম্যাচ পরিত্যাক্ত হওয়ায় মাত্র ১ পয়েন্ট নিয়ে নবম স্থানে অবস্থান করছে দলটি। তাদের নেট রান রেট -০.৯৫২।

আফগানিস্তান: বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত কোনও পয়েন্টের দেখা পায়নি আফগানরা। তিন ম্যাচের তিনটিতেই হেরেছে তারা। এশিয়ার নব উথিত এই দলটির নেট রান রেট -১.৪৯৩।

নিউজ গার্ডিয়ান/ এমএ/