ইবির সাবেক প্রক্টরের বিরুদ্ধে শিবির সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে তদন্ত কমিটি

ইবি প্রতিনিধি:

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রক্টর ও সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমানের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। ছাত্রলীগ নেতার অভিযোগের ভিত্তিতে এর সত্যতা যাচাইয়ে রবিবার বিকালে তিন সদস্য বিশিষ্ট এই তদন্ত কমিটি গঠন করা হয় বলে জানা গেছে।

জানা যায়, গত ২৩ সেপ্টেম্বর ডিবিসি নিউজ টিভি চ্যানেলের এক লাইভ অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান লালন ড. মাহবুবের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ তুলেন। এসময় তিনি ড. মাহবুবকে নিয়োগ বাণিজ্যের মূলহোতা, পুলিশ দিয়ে ছাত্রলীগ কর্মীদের উপর গুলি বর্ষণ, ছাত্র অবস্থায় শিবিরের সাথে সম্পৃক্ততাসহ বিভিন্ন অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় ড. মাহবুব শিক্ষক সমিতির কাছে বিচারের দাবি জানান। কিন্তু শিক্ষক সমিতি অভিযোগ ও ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে। কমিটিতে শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূইয়া ও শাপলা ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক ড. রেজওয়ানুল ইসলাম রয়েছেন।

এবিষয়ে মিজানুর রহমান লালন বলেন, ‘তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গুলো শতভাগ সঠিক। তার বন্ধু ও ছাত্রলীগের সাবেক ভাইদের কাছে আমরা তার শিবির সম্পক্ততার বিষয়ে জানতে পেরেছি। এছাড়া নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগের বিষয় গুলো বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে।’

তদন্তের বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন বলেন, ‘এটি সাংবাদিকদের আলোচনা করার কোন বিষয় না। তাছাড়া আমাদের সংগঠনের ইন্টারনাল কিছু বিষয় থাকতেই পারে’।

এদিকে শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূইয়া সাংবাদিকদের জানান, ‘যে কোন বিষয়ের যাচাই-বাছাই ছাড়া আমরা কোন প্রদক্ষেপ নিতে পারি না। তাই ঘটনার সত্যতা যাচাই করতে এই তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান বলেন, শিক্ষক সমিতির তদন্ত কমিটির বিষয়ে আমি কিছু জানি না। তবে মিজানুর রহমান লালনের বিরুদ্ধে আমি আগেই আইনি ব্যবস্থা নিয়েছি।

নিউজ গার্ডিয়ান/ আদিল সরকার/ এমএ/