‘জাবির হল খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়নি প্রশাসন’

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ অফিস থেকে পাঠানো এক প্রেস বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের হল খুলে দেয়ার কোন সিদ্ধান্ত নেয়নি প্রশাসন।’

সোমবার (১৮ নভেম্বর) জনসংযোগ অফিসের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক সাক্ষরিত এই বিবৃতি গণমাধ্যমে পাঠানো হয়।

এতে বলা হয়, ‘বেসরকারি টেলিভিশন ‘চ্যানেল আই’-এর উদ্ধৃতি দিয়ে ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ২১ নভেম্বর খুলে দেয়া হবে এবং এ লক্ষ্যে ১৯ নভেম্বর আবাসিক হলসমূহ খুলে দেয়া হবে বলে তথ্য প্রচার করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সকলের জ্ঞাতার্থে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নির্দেশক্রমে জানানো যাচ্ছে যে, উপর্যুক্ত তথ্য সঠিক নয়। চ্যানেল আই কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, চ্যানেল আই-তে এ ধরনের খবর প্রচার করা হয়নি।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ মনে করেন যে, উদ্দেশ্যমূলকভাবে এ ধরনের মনগড়া ও অসত্য তথ্য প্রচার করা হচ্ছে, যার কোনো ভিত্তি নেই।

সংশ্লিষ্ট সকলের জ্ঞাতার্থে আরও জানানো যাচ্ছে যে, বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেয়ার ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ আন্তরিক। পরিবেশ ও পরিস্থিতি পর্যালোচনাপূর্বক যথাসময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলসমূহ খুলে দেয়া হবে এবং শিক্ষাকার্যক্রম চালু করা হবে।

এদিকে বিবৃতিতে আরো জানানো হয়,
জাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামের কোনো ফেসবুক আইডি নেই।

কিন্তু উপাচার্যের ছবি ও পদবি ব্যবহার করে একটি ফেসবুক আইডি খোলা হয়েছে, যা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি গোচর হয়েছে। প্রকৃত তথ্য হচ্ছে, ড. ফারজানা ইসলামের নামে খোলা এই ফেসবুক আইডি ভূয়া। কোনো ব্যক্তি অসৎ উদ্দেশ্যে এই ভূয়া ফেসবুক আইডি খুলেছে। সংশ্লিষ্ট সকলের জ্ঞাতার্থে জানানো যাচ্ছে যে, উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামের কোনো ফেসবুক আইডি নেই। ভূয়া ফেসবুক আইডি’র বিষয়ে ইতোমধ্যে আশুলিয়া থানায় জিডি করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সকলকে এ ব্যাপারে সতর্ক থাকার আহবান জানানো হচ্ছে।

নিউজ গার্ডিয়ান/ এমএ/